1. admin@vromontv.com : vromonadmin :
ভ্রমন টিভি। ভ্রমন,ভিসা,ইমিগ্রেশন নিয়ে দেশের প্রথম অনলাইন টিভি।
রবিবার, ০৭ অগাস্ট ২০২২, ১০:৩২ অপরাহ্ন
ভ্রমন সংক্রান্ত সর্বশেষ খবর
সিঙ্গাপুর গিয়ে কি কি দেখবেন এবং বাংলাদেশ থেকে সিঙ্গাপুর এর ভিসা কিভাবে করবেন। (Singapore Visa From Bangladesh) বাংলাদেশ থেকে সুইডেন ভিসা (Sweden Visa From Bangladesh) কিভাবে করবেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা (USA Tourist Visa From Bangladesh) কিভাবে করবেন। জার্মানি ভ্রমন ভিসা করতে চান? জেনে নিন (Germany Tourist Visa) প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস জেনে নিন ইউরোপের শক্তিশালী দেশ জার্মানি (Germany Documentary) সর্ম্পকে। নভোএয়ার এ কক্সবাজার এর টিকেট কিনলে দুই রাত হোটেল ফ্রি। (NovoAir Ticket Offer) অ্যান্টার্কটিকা জয়ের বিস্ময়কর গল্প! এন্টার্কটিকা মহাদেশ ভ্রমন গল্প শুনুন বাঙালি দম্পতির কাছ থেকে। Antarctica Travel বিমানে করে ঘুরে আসতে পারবেন অ্যান্টার্কটিকা (এন্টার্কটিকা) মহাদেশ থেকে। Antarctica Travel এন্টারটিকা মহাদেশ ভ্রমন (Antarctica Travel Tips) সর্ম্পকে ২০ টি অজানা মজার তথ্য। Facts of Antarctica তুরস্ক ভ্রমন ভিসা (Turkey Tourist Visa) করতে চান? জেনে নিন বাংলাদেশ থেকে তুরস্ক যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন।







মাওয়া রিসোর্ট ভ্রমণ। মুন্সিগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় একটি দর্শনীয় স্থান।

Travel News
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৫ মার্চ, ২০২১
  • ১৫২৫ Time View
মাওয়া রিসোর্ট (Mawa Resort) ভ্রমন পিয়াসুদের কাছে হতেপারে একটিআকর্ষনীয় জায়গা। ঢাকা থেকে মাত্র ৩৮ কিলোমিটার দূরে মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার মাওয়া ১নং ফেরি ঘাঁট থেকে একটু দক্ষিণে গেলে মাওয়া-ভাগ্যকুল রাস্তার কান্দিপাড়া গ্রামে প্রকৃতিকে আরও কাছ থেকে উপলব্ধির জন্য পুলিশের রিটায়ার্ড প্রাপ্ত কাশেম হাওলাদার ২৩ বিঘা জায়গার উপর নির্মাণ করেছেন পর্যটকদের বিনোদন কেন্দ্র মাওয়া রিসোর্ট (Mawa Resort)।
মাওয়া রিসোর্ট, Maowa Resort;







মাওয়া রিসোর্ট ভ্রমন পিয়াসুদের কাছে হতেপারে একটিআকর্ষনীয় জায়গা। ঢাকা থেকে মাত্র ৩৮ কিলোমিটার দূরে মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার মাওয়া ১নং ফেরি ঘাঁট থেকে একটু দক্ষিণে গেলে মাওয়া-ভাগ্যকুল রাস্তার কান্দিপাড়া গ্রামে প্রকৃতিকে আরও কাছ থেকে উপলব্ধির জন্য পুলিশের রিটায়ার্ড প্রাপ্ত কাশেম হাওলাদার ২৩ বিঘা জায়গার উপর নির্মাণ করেছেন পর্যটকদের বিনোদন কেন্দ্র মাওয়া রিসোর্ট (Mawa Resort)।

নগর ব্যস্ততাকেপেছনে ফেলে প্রকৃতির কাছে যেতে চাইলে মন ভরে বিসুদ্ধ বাতাসের আবেশপেতে চাইলে ঘরে আসুন মুন্সিগঞ্জের মাওয়া রিসোর্ট থেকে। সবুজে ঘেরা এ রিসোর্টে রয়েছে সারি সারি নারিকেল আর সুপারী গাছে। যায়গাটিকে আরও আকর্নীয় করে তুলেছে রিসোর্টের মাঝখানে থাকা দীঘিটি। চাইলে নৌকায় করে ঘুরতে পারেন পুরো দীঘি। চাইলে দীঘি থেকে মাছ শিকার করে তার স্বাদ ও নিতে পারেন। দর্শনার্থীদের পারাপারের জন্য আছে দৃস্টিনন্দন ২টি কাঠের ব্রিজ। শিশুদের জন্য আছে মাঠে দোলনা ও স্লিপার এর ব্যবস্থা। প্রকৃতির সংস্পর্শে নিয়ে যাওয়ার জন্য পুরো রিসোর্ট সজ্জিত বিভিন্ন ফুল ও ফলের গাছ দ্বারা।

মাওয়া রিসোর্টে সারা দিন ও রাত্রি যাপনের জন্য রয়েছে মোট ১৮টি কটেজ যা স্যুইট, ডিলক্স ও কটেজ দ্বারা বিভক্ত। অতিথিদের জন্য ৫ট সিঙ্গেল, ৪টি ডাবল ও ১টি স্যুইট রয়েছে এখানে। রাতের আঁধারে জোনাকির আলো ও ঝিঁঝিঁ পোকার ডাক শুনতে হলে রিসোর্টের কটেজের বিকল্প নেই।  

সকলের জন্য আছে দেশি-বিদেশি শেপদের দ্বারা দেশি, থাই, কন্টিনেন্টাল ও চাইনিজ খাবারের সুব্যবস্থা। এখানকার রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ সর্বদা অতিথি সেবায় নিয়জিত থাকে। দর্শনার্থীদের বিনোদনের মাত্রা বাড়িয়ে দিতে তৈরী করা হয়েছে সুইমিংপুল।

খাবার রেস্টুরেন্ট

অতিথিদের খাবারের কথা বিবেচনা করে রিসোর্টের অভ্যন্তরে নির্মাণ করা হয়েছে ইস্ট ওয়েস্ট রেস্টুরেন্ট নামে একটি সুন্দর ও আধুনিক সাজসজ্জা সম্পন্ন-মানসম্মত খাবার রেস্টুরেন্ট। যেখানে আপনি পাবেন বাঙ্গালির ঐতিহ্যবাহী খাবার থেকে শুরু করে নানা রকম ভর্তা, নদীর তাজা মাছের স্বাদ। এছাড়া অন্যান্য খাবারের মধ্যে রেস্টুরেন্টটিতে ইন্ডিয়ান কন্টিনেন্টাল এবং চাইনিজ সব ধরনের খাবার পাওয়া যায়। সবচেয়ে বড় কথা খাবাবেব স্বাদ অসাধারন।

  • রেস্টুরেন্টে সারা বছর গাছের কাঁচা আমের জুস পাওয়া যায়।

কনফারেন্স রুম

কর্পোরেট অফিসের যেকোনো মিটিং, ইভেন্ট, সেমিনার, অনুষ্ঠান অথবা ওয়ার্কশপের জন্য এখানে নির্মাণ করা হয়েছে একটি এসি সম্পন্ন কনফারেন্স রুম। যেখানে নিরিবিলি একসাথে অনেকজন অতিথি আসন গ্রহণ করে তাদের কাজে মনোনিবেশ করতে পারে।

পিকনিক প্যাকেজ ও খরচ

পিকনিকের জন্য আছে এখানে খোলামেলা পরিবেশ যেখানে সর্বোনিম্ন ৫০ জন থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৬০০ জন অতিথি একসাথে আনন্দ আয়োজনে মেতে উঠতে পারে।

পিকনিকের খরচ

৫০ জন অতিথি: ২০,০০০ টাকা

১০০ জন অতিথি: ৩০,০০০ টাকা

২০০ থেকে ৩০০ জন অতিথি: ৫০,০০০ টাকা

৩০০ থেকে ৪০০ জন অতিথি: ৬০,০০০ টাকা

৫০০ থেকে ৬০০ জন অতিথি: ৮০,০০০ টাকা

( তবে টাকার পরিমান কতৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কম বচা বেশি হতে পারে।

প্রবেশ ফি: ৪০ টাকা জনপ্রতি

খোলার সময়: সকাল ৯ টা থেকে রোত ১০ টা

মাছ শিকার: এক্ষেত্রে দিতে হবে ২০০০ টাকা । ততে যে মাছ শিকার করবেন তা নিয়ে যেতে পারবেন অথবা শেফদের দিয়ে রান্ন করে খেতেও পারবেন।

কি ভাবে যাবেন:

  • নিজস্ব ব্যক্তিগত গাড়ি থাকলে খুব সহজেই ঘুরে আসতে পারেন মাওয়া রিসোর্ট থেকে। সেক্ষেত্রে আপনি প্রথমে মাওয়া গোলচত্বরের ডান দিকে যেয়ে দুই কিলোমিটার এগিয়ে লৌহজং পুলিশ ফাঁড়ির কাছে পুরনো ফেরি ঘাটের পাশে মাওয়া রিসোর্টে চলে আসতে পারেন অতি অল্প সময়ে। সেক্ষেত্রে আপনাকে দুই জায়গায় ৩০ টাকা করে মোট ৬০ টাকা টোল দিতে হবে। লৌহজং থানার সামনে গাড়ি রাখার ব্যবস্থা আছে।
  • অথবা আপনি যদি বাসে করে যেতে চান তাহলে ঢাকার গুলিস্তান থেকে মাওয়াগামী যেকোনো বাস যেমন ইলিশ পরিবহন বা গাঙচিল, মিরপুর ১০, ফার্মগেট, শাহবাগ থেকে স্বাধীন পরিবহনে ভাড়া ৭০ টাকা যোগে চলে আসতে পারেন লৌহজং থানা মসজিদ ঘাট পর্যন্ত। এরপর রিক্সা অথবা অটো রিক্সায় করে ১০/১৫ মিনিটের মধ্যে আপনি পৌঁছে যাবেন মাওয়া রিসোর্ট।
  • অন্যথায় আপনি গ্রেট বিক্রম পরিবহন বা গোধূলি পরিবহনে করে প্রথমে মাওয়া ঘাট পর্যন্ত যেতে পারেন। সেক্ষেত্রে মাওয়া ফেরি ঘাট যাওয়ার পূর্বে লৌহজং থানা দিয়ে যাওয়ার পথে আপনাকে চৌরাস্তায় নামতে হবে। সেখান থেকে রিক্সা বা অটোতে মাত্র ১৫মিনিটের মধ্যে আপনি পৌঁছে যাবেন প্রকৃতির সংস্পর্শে এই মাওয়া রিসোর্টে। 

কটেজ সম্পর্কিত তথ্য ও ভাড়া

রিসোর্টের মোট ১৮টি কটেজ রয়েছে যার মধ্যে ৫টি সিঙ্গেল, ৪টি ডাবল ও ১টি স্যুইট। কটেজগুলো সাধারণত ইটের দেয়াল হলেও এর ছাদ গুলো তৈরি করা হয়েছে গোলপাতা দিয়ে এবং বাঁশের চটা দিয়ে নানা নকশা করা সিলিং আপনাকে মুগ্ধ করবে। এক কথায় বলতে গেলে গ্রামীণ পরিবেশে আধুনিকতার ছোঁয়া!

অতিথিদের সুবিধার্থে ডে লং (সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত) ও নাইট স্টে (দুপুর ১২টা থেকে পরদিন দুপুর ১২টা পর্যন্ত) এই দুইটি সিস্টেমে কটেজ ভাড়া দেওয়া হয়।

ইকোনোমি রুম

২জন অতিথি ও ২জন শিশুর জন্য নন এসি এই ইকোনোমি রুমটির ভাড়া সকাল ৮
টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত প্রায় ৩০০০ টাকা।

অন্যথায় সম্পূর্ণ দিনের জন্য অর্থাৎ দুপুর ১২টা থেকে পরদিন দুপুর ১২টা পর্যন্ত রুমটি ভাড়া নিতে চাইলে গুনতে হবে ৩৫০০ টাকা।

এক্সিকিউটিভ রুম

মোট ৪জন অতিথির জন্য নন এসি এক্সিকিউটিভ রুমটির মূল্য পরবে সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬সন্ধা পর্যন্ত ৩৫০০ টাকা।

এছাড়া সম্পূর্ণ দিনের জন্য অর্থাৎ দুপুর ১২টা থেকে পরদিন দুপুর ১২টা পর্যন্ত ভাড়া নিতে চাইলে ভাড়া পরবে প্রায় ৪০০০ টাকা।

ডিলাক্স রুম

৪জন অতিথির জন্য এসি ডিলাক্স রুমটির ভাড়া পরবে সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ৪০০০ টাকা।

যারা সম্পূর্ণ দিনের জন্য (১২:০০ পিএম থেকে পরদিন ১২:০০ পিএম) ভাড়া নিতে চান তাদের জন্য গুনতে হবে প্রায় ৫০০০ টাকা। 

স্যুইট কটেজ

মোট ৮জন অতিথির জন্য এসি স্যুইট কটেজটিতে আপনি পাচ্ছেন একাধারে সকালের নাস্তা, ২টি ডাবল বেড রুম যেখানে একটিতে ডাবল বেড ও অন্য রুমে ২টি সিঙ্গেল বেড, একটি লিভিং রুম ও সাথে এটাচ বাথরুমের সুবিধা। যার ভাড়া পরবে অর্ধেক দিনের জন্য ( সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা) ১০,০০০ টাকা।

এবং সম্পূর্ণ দিনের জন্য অর্থাৎ দুপুর ১২টা থেকে পরদিন ১২টা পর্যন্ত ভাড়া পরবে ১২০০০ টাকা।

  • অতিরিক্ত বেডের জন্য ৫০০ টাকা দিতে হবে।

কটেজের সুবিধাবলী

  • প্রতিটি কটেজ রুমে থাকছে টেবিল, চেয়ার, টিভি এবং এটাচ বাথরুমের সুবিধা।
  • ডিলাক্স রুমে অতিথিদের জন্য থাকছে মানসম্মত পরদিনের সকালের নাস্তা।

কটেজ বুকিং ও রিসোর্ট সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য জানতে সরাসরি যোগাযোগ করুনঃ-  

মাওয়া রিসোর্ট, কান্দিপাড়া রোড, মাওয়া, মুন্সিগঞ্জ, ঢাকা।
মোবাইলঃ 01711057947, 01755592585, 01755592584
Emai: info@mawaresort.com
Website: www.mawaresort.com
Facebook page: www.facebook.com/mawaresortbd










Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




More News Of This Category







© All rights reserved © 2022 VromonTV
Developed By VromonTV